প্রতিমা রায় বিশ্বাস

কবিতা

আরও একবার অঙ্কুরিত হতে চাই আগুনবিটপ ,আগুনশিকড়।

যেভাবে এখন সত্যির গায়ে কেরোসিন ঢেলে কথা ধরাও

সেভাবেই নাহয় তাকিয়ে থেকো অসংখ্য শান্তির প্রদীপ চোখে জ্বেলে।

 

দেখো অঙ্গার খুঁচিয়ে দেখো আমার দেহ বিলীন।

ওই যে সূর্য,

এখনও যে এক জ্বলন্ত চিতা , জ্বলে জ্বলে….ভোর আনে।

দেখো দেহহীন আলো ছুটে আসছে রোদ।

ছুয়ে দিচ্ছি আমিও উত্তাপ।

দেহ যদি নাই থাকে আলো এ উত্তাপ তবে কার?

 

আমার ভিতরে যত হৃদয় রক্তক্ষরণ

ধমনী ধমনী ওই লাভাস্রোত।

আমার দু পা বেয়ে মাটিতে গড়ায় লৌহরক্তকণা।

আমি অঞ্জলি ভ’রে  নিয়েছি তুলে বলেছি  হে মৃত্তিকা তুমিতে আমি

দেখো ওই লৌহকণা ইস্পাতের ভাষায় মাতৃকথা ভারী হয়ে আসে।

দেখতে পাই যেন  ফ্যাকাশে মাটির শরীরে  অ্যানিমিয়া।