সুশীল নাগ

কে

 

কে তুমি ঢলভাঙ্গা জ্যোৎস্নায় কুঞ্জ ভিলায় একাকী বসে?

গাঙুড়ের জলে ও কার শব ভাসে! এত দিনের কথা ঠিকঠাক মনে পড়ে না

আমাকেই আমি ভুলে গেছি, ভুলে থাকি গাছেদের সাথে গাছ হয়ে !

আমার চেনা জানা কত মানুষ এক পায়ে দাঁড়ানো গাছের কাছে উড়ে আসে পাখি হয়ে।

ওরা নীরবতায খুঁটে  খেতে আসে  একলা বেলার এই নদী ঘাটে ।

এখানে নেমে আসে মেঘে ঢাকা অন্তরাল ,স্বপ্নের স্বদেশ।

ঐতো আমার মা সধবার বেশে ঘাটে এলো, কি কথা বলে গেল নিশ্চুপ জলের কাছে!

আমি ভেতরে ভেতরে বেজে উঠলাম ।

আমার ভেতরে তৈরী হচ্ছিল একটি অলীক মৌচাক,

অনন্য নিবিড়।