অপরাজিতা ভট্টাচার্য

অকস্মাৎ

 

হেঁটে হেঁটে ক্রমান্বয়ে আবছা হয়ে এলে বুড়ো শহর, বড় গদ্য,

আসে এক নিরিবিলি পথ।

 

যে পথ ধরে হেঁটে গেলে ফিরে তাকাতে ইচ্ছে করে না।

ছড়া কাটার মত কানে বাজে তোমার প্রোথিত কথারা…

সিম্পল হারমোনিক মোশনে ঘুরে ঘুরে বাজে…

আসছে যাচ্ছে, আসছে যাচ্ছে…

 

পলক ফেলছি না, পথটাকে পরমার্থ ভেবে এগিয়ে যাচ্ছি।

যে জায়গায় পৌঁছে মনে হবে এবার

বোধ হয় রহিত হলাম, সে জায়গা অচেনা।

 

ঘুরতে ঘুরতে, আরও কিছুটা ভালবেসে,

অসহ্য স্মৃতিজল ভরা কবিতা লিখে মরে গেলেই হয়।

কয়েক কোটি জ্যোৎস্নাও তো মরে গেছে।

দীর্ঘ নিরালায় যেটুকু হুতাশন তার তাজিয়া এখানেই মানায়।

নদীতীরে এসে পড়েছি।

সন্ধ্যা নামছে।

আলো আঁধারের মল্লযুদ্ধ।

যেসব স্মৃতিপঙক্তি গতকালও ছিল শুকনো রক্তরেখা, ধুয়ে যাচ্ছে।

 

রেহাই পেয়েছি ভাবি দশদিক থেকেই।

বাসামুখী পাখিডাক লুট করে নিচ্ছে আমার মৃত্যু ব্যাকুলতা।

পাখিরা যেন নৈঋত থেকে করজোড় ।