কাজী নিজামউদ্দীন

ব্যবধান

 

বাঁকদিঘির উঁচু পাড়ে যেদিন

প্রথম সাইকেল চড়া শিখেছিলাম

আমি আর দেবাশীষ

সেদিন পড়ে গিয়ে দুই হাঁটু ক্ষতবিক্ষত

আমার থেকে দেবাশীষ কেঁদেছিল বেশী।

দিঘি থেকে অনেক পদ্ম এনে দিয়েছিল

জোঁকের কামড়ও খেয়েছিল খুব।

 

আবার অনেক বছর পরে সেই

পুকুর পাড়ে আমি আর দেবাশীষ

ও এখন দাদু হয়ে  গেছে ।

তবুও ও যেন কিশোর ।

আজ অনেক বছর ধরে

যাদের চিনি জানি ও তাদের মতো নয়।

যে ছেলেমেয়েদের সব মানুষ সমান

কবির বাণী পড়িয়েছিলাম

বিশ্বাস করেছিলাম ওরাও আমার মতো

দেবাশীষের মতো বাঁকদিঘির পদ্মফুল

তুলে ভারতবর্ষ কে হাতে দেয়।

 

আজ সেসব ছেলেদের  দুচোখে  কেমন

ঘৃণা ক্রোধ আর ভয়ঙ্কর জিঘাংসা।

আমি তো ওদের আমার মতো

দেবাশীষের মতোই দেখেছিলাম।

শরহদ এক পাহাড় ব্যবধান যেন

রেখে দিল নিজেদের অজান্তে ।

দেবাশীষের চোখে জল আসে

এসব শুনে আমিও নির্বাক

বাঁকদিঘির  কাজল জলের মতো।