রিয়া চন্দ্র

পাহাড়িয়া পাখি

 

তোমার নিষ্পাপ মুখ,বিরূপতা মেখে থাকে

অদৃশ্য প্রাচীরে

অসময়ে চৌকাঠ পেরিয়ে এলে না বলা

বহু কথা বাকি রয়ে যায়

 

দুদন্ড অপেক্ষা থেকে অনেকটা সময় হেঁটে গেলে

হঠাৎ উন্মুক্ত হয় এক ডানাছাঁটা পথ

বেরিয়ে আসে কিছু পাখিদের খিদে, রাত, সংযম।

 

রাতের গলায় ওড়না জড়িয়ে শান্ত মাঠে

আলো জ্বালে জোনাক মেয়ের নরম হাত

বিকলাঙ্গ কিছু ইচ্ছেরা সকাল হলেই পাখি হয়ে

উড়ে যায় অনির্বচনীয় ছায়ার গভীরে

খিদে ভুলে ঈশ্বর তখন বাঁচেন

পাহাড়িয়া পাখির ঠোঁটে